জেলা শিল্পকলা একাডেমি, গোপালগঞ্জ

১৯৭৪ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান জাতীয় আশা-আকাঙ্ক্ষার সাথে সংগতি রেখে বাংলাদেশকে শিল্প সংস্কৃতি ঋদ্ধ সৃজনশীল মানবিক বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি বাংলাদেশের শিল্প সংস্কৃতি বিকাশের একমাত্র জাতীয় প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশের সকল জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে জাতীয় সংস্কৃতি এবং দেশীয় ঐতিহ্য ও কৃষ্টি যথাযথভাবে সংরক্ষণ এবং সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে এর প্রতিফলন ঘটানোর জন্য সাবেক পাকিস্তান আর্ট কাউন্সিল ভেঙ্গে ১৯৭৪ সালে জাতীয় সংসদের এক বিধি বলে প্রতিষ্ঠা লাভ করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি।

বিস্তারিত
  1. Notice Board

    সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান


    আগামি ২৫ নভেম্বর পৌর পার্কে বিকাল ৩ ঘটিকায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

    ....Details

সাম্প্রতিক অনুষ্ঠান




সাম্প্রতিক প্রবন্ধ

শিল্পকলা একাডেমি, গোপালগঞ্জঃ অতীত ও ভবিষ্যৎ
পরিমল সরকার

বৃটিশ ভারত শাসনামল থেকেই গোপালগঞ্জ সাহিত্য-সংস্কৃতি ও নাট্য শিল্পে ঐতিহ্য বহন করে আসছে। ১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের পর কয়েকজন উৎসাহী আইনজীবী, চিকিৎসক, শিক্ষক ও ব্যবসায়ী সমন্বয়ে গঠিত হয় ‘‘গোপালগঞ্জ কালচারাল এসোসিয়েশন।’’

বিস্তারিত

গোপালগঞ্জ জেলার সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য
রবীন্দ্র নাথ অধিকারী

বিচিত্র মনীষা ও লোকজ-সংস্কৃতির সমাবেশে গোপালগঞ্জ এক ঋদ্ধ-জনপদ। মধুমতি বিধৌত এই জনপদের রয়েছে সুপ্রাচীন ইতিহাস ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য। ইতিহাস-ঐতিহ্যের ঔজ্জ্বল্যে দেশীয় পরিমণ্ডলের বাইরেও গোপালগঞ্জের রয়েছে একটি পরিচিতি। রয়েছে গুরুত্ব। গোপালগঞ্জ হচ্ছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মধন্য পূণ্য ভূমি।

বিস্তারিত